‘আমি সেলিব্রিটি, আর বাদাম বেচব না’

গত বছরের নভেম্বরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হন ভুবন বাদ্যকর নামে ভারতের এক বাদাম বিক্রেতা। তার ‘কাঁচাবাদাম’ গানটি নিয়ে কম তোলপাড় হয়নি।

লাইকি, টিকটক, ফেসবুক, ইউটিউব— সবখানের চর্চিত বিষয় ছিল এই ‘কাঁচাবাদাম’ গান। ভাইরাল হয়ে রাতারাতি সেলিব্রিটিতে পরিণত হন পশ্চিমবঙ্গের বীরভূমের প্রত্যন্ত অঞ্চল কুড়ালজুরি গ্রামের ভুবন।

যে কাঁচাবাদাম বিক্রি করে ভুবন তারকায় পরিণত হয়েছেন, এখন তা-ই আর সে কাজ করবেন না বলে জানিয়েছেন তিনি।

পুরনো পেশা ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্তের বিষয়ে ভুবন বাদ্যকর বলেন, ‘আমি সেলিব্রিটি, আর বাদাম বেচব না’।

বৃহস্পতিবার ইলামবাজারের এক অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে ভুবন বলেন, ‘এখন বাদাম বিক্রি করলে সবাই ঘিরে ধরবে, বাদামই বিক্রি হবে না। আর আপনাদের কাছে যখন পৌঁছে গেছি, তখন আশা করি, আর বাদাম বিক্রি করতে হবে না।’

অবশ্য ভাইরাল হয়ে ভুবনের আর সেই দৈন্যতা নেই। তিনি এখন কণ্ঠশিল্পী।

‘গোধূলি বেলা’ নামের যে মিউজিক কোম্পানি প্রথম তার গান প্রকাশ করেছিল, তারাই এবার তার সঙ্গে তিন লাখ রুপির চুক্তি করেছে।

কোম্পানির পক্ষ থেকে ইলামবাজারে বৃহস্পতিবার ভুবন বাদ্যকরকে সংবর্ধনাও দেওয়া হয়। এ সময় তাকে দেখতে ভিড় জমায় অনেকে। অনেকের মুখে শোনা গেছে, তার সেই ভাইরাল গান – ‘বাদাম বাদাম দাদা কাঁচাবাদাম, আমার কাছে নেই কো বুবু ভাজা বাদাম, আমার কাছে পাবে শুধু কাঁচা বাদাম…’

এদিন অনেকেই নানা উপহারও নিয়ে আসেন। বার্নপুর নামক এলাকার কয়েকজন তরুণ-তরুণী ভুবনকে পিয়ানো উপহার দেন। এ ছাড়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ভুবনকে শাল, কম্বল, ফুল ও মিষ্টি উপহার দেওয়া হয়।

ভুবনের গান যেন আর কেউ ব্যবহার করে নিজেদের ফায়দা লুটতে না পারে, সে জন্যই চুক্তি স্বাক্ষর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন গোধূলিবেলার মালিক গোপাল ঘোষ।

তিনি বলেন, ভুবনের ‘কাঁচাবাদাম’ গান প্রকাশ করলেও কপিরাইটের বিষয়টি সম্পর্কে তেমন ওয়াকিবহাল ছিলাম না আমরা। তাই যে যেমন পেরেছেন, ভুবনের গান ব্যবহার করেছেন। তবে এখন বিষয়টি বুঝতে শুরু করেছি। তাই গান চুরি রুখতে আগামী দিনে কঠোর পদক্ষেপ নেব। এতে প্রতিষ্ঠান ও ভুবন দুপক্ষই লাভবান হবে।

তথ্যসূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস, জি-নিউজ

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*