এক পরিবারে নৌকাসহ পাঁচ প্রার্থী, জেতেনি কেউই

সপ্তম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী ছিলেন একই পরিবারের পাঁচজন। কিন্তু তারা কেউই জয় পায়নি। কুমিল্লার দেবিদ্বারের ফতেহাবাদ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ১৫ জন প্রার্থীর মধ্যে একই পরিবারের ছিলেন পাঁচজন। তারা কেউই জেতেনি।

আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকে নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন শাহনাজ পারভীন। অন্য প্রার্থীরা হলেন- শাহনাজ পারভীনের সৎ ছেলে মো. আল মামুন, শাহনাজ পারভীনের ভাসুর সাবেক চেয়ারম্যান আনারস প্রতীকের প্রার্থী খন্দকার এম এ ছালাম, শাহনাজ পারভীনের ভাসুর খন্দকার এম এ ছালামের ছেলে খন্দকার ফখরুল ইসলাম ও খন্দকার মজিবুর রহমান।

ফতেহাবাদ ইউনিয়নের রিটার্নিং কর্মকর্তা আশরাফুন নাহার স্বাক্ষরিত বেসরকারি ফলাফল বিবরণীতে জানা যায়, শাহনাজ পারভীন নৌকা প্রতীকে ৮৭০ ভোট পেয়ে ৬ষ্ঠ স্থান লাভ করেন। এতে তার জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে।

শাহনাজ পারভীনের সৎ ছেলে মো. আল মামুন দুটি পাতা প্রতীকে সাত ভোট, ভাসুর খন্দকার এম এ ছালাম আনারস প্রতীকে ৩ হাজার ৪৪৭ ভোট পেয়ে চতুর্থ হন। এছাড়া শাহনাজ পারভীনের ভাসুরের দুই ছেলে খন্দকার ফখরুল ইসলাম ও খন্দকার মুজিবুর রহমান যথাক্রমে ২৫ ও ৫৩ ভোট পান।

ওই ইউনিয়নে মোহাম্মদ কামরুজ্জামান মাসুদ দোয়াত কলম প্রতীকে চার হাজার ৫৩৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী দেলোয়ার হোসেন ঘোড়া প্রতীকে চার হাজার ৪০৩ ভোট পান। আর স্বতন্ত্র প্রার্থী জাহিদ হাসান চশমা প্রতীকে তিন হাজার ৫৪৪ ভোট ও ঢোল প্রতীকে মফিজুল ইসলাম পান তিন হাজার ২১০ভোট। ওই ইউনিয়নে ৩২ হাজার ২৫০ জন ভোটারের বিপরীতে ভোট দেন ২১ হাজার ২ জন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*