টানা ৩১ ম্যাচ ধরে হারে না মেসির আর্জেন্টিনা

আসন্ন কাতার বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে ড্র করেছে আর্জেন্টিনা। ইকুয়েডরের সাথে তাদেরই ঘরের মাঠে ১-১ গোলের সমতায় ম্যাচ শেষ করেছে আলবেসিলেস্তেরা। তরুণ ফরোয়ার্ড জুলিয়ান আলভারেজের নৈপুণ্যে শুরুতে এগিয়ে গিয়েও যোগ করা সময়ে ব্যবধান ঘুচিয়ে ম্যাচে ফেরে ইকুয়েডর।ইকুয়েডরের স্তাদিও মনুমেন্তাল বানকো পিচিনচায় বাংলাদেশ সময় বুধবার ভোরে অনুষ্ঠিত হওয়া বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়েছে। ইকুয়েডরের পক্ষে একমাত্র গোলটি করেন এনার ভালেন্সিয়া।

আগের ম্যাচেই বিশ্বকাপ নিশ্চিত হয়ে যাওয়ায় এদিন নির্ভার হয়ে মাঠে নামে ইকুয়েডর। প্রথম ২০ মিনিটে কয়েকটি আক্রমণও করে দলটি, গোলের উদ্দেশ্যে যদিও কোনো শট নিতে পারেনি তারা। ২৪তম মিনিটে প্রথম সুযোগ পেয়েই এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। মেসির দারুণ পাস ডি-বক্সে ধরে ডান দিকে বল বাড়ান নিকোলাস ট্যাগলিয়াফিকো। পেনাল্টি স্পটের কাছে বল ধরে প্রতিপক্ষের চ্যালেঞ্জে প্রথম দফায় ঠিকমতো শট নিতে পারেননি আলভারেজ।

তবে দ্বিতীয় প্রচেষ্টায় ঠিকই কোনাকুনি শটে লক্ষ্যভেদ করেন রিভার প্লেটের এই ফরোয়ার্ড। ৪১তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ হতে পারতো। তবে রদ্রিগো ডি পলের ক্রসে বল দূরের পোস্টে পেয়ে কাছ থেকে গোলরক্ষক বরাবর হেড করেন নিকোলাস ওটামেন্ডি। বিরতির ঠিক আগে ডি-বক্সে ফাঁকায় বল পেয়েও কাজে লাগাতে পারেননি ইকুয়েডরের পেরভিস এস্তুপিনান।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে নিজেদের খেলার গতি কিছুটা কমিয়ে দেয় আর্জেন্টিনা। উপরে উঠে আক্রমণে মনোযোগী হয় ইকুয়েডর। ৬২তম মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থেকে তাদের ফরোয়ার্ড আনহেল মেনার বুলেট গতির শট পোস্টের বাইরে দিয়ে যায়। খানিক পর একটি ফাউলের ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের খেলোয়াড়রা বাক-বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। আর্জেন্টিনার ওটামেন্ডি ও একুয়েডরের এস্ত্রাদাকে হলুদ কার্ড দেখান। ডাগআউটে আর্জেন্টিনা কোচ লিওনেল স্কালোনিকেও হলুদ কার্ড দেখান রেফারি।

যোগ করা সময়ের তৃতীয় মিনিটে গিয়ে গোলটি হজম করে সফরকারীরা। ডি-বক্সে নিকোলাস ট্যাগলিয়াফিকোর হাতে বল লাগলে ভিএআরের সাহায্যে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। ফরোয়ার্ড ভালেন্সিয়ার স্পট কিক ঝাঁপিয়ে ফিরিয়ে দেন গোলরক্ষক জেরোনিমো রুলি; কিন্তু বল হাতে রাখতে পারেননি। আলগা বল পেয়ে ফিরতি শটে লক্ষ্যভেদ করেন ভালেন্সিয়া। সব মিলিয়ে টানা ৩১ ম্যাচে অপরাজিত রইল গত বছরেই কাতার বিশ্বকাপে খেলা নিশ্চিত করা দলটি, যার শুরুটা হয়েছিল ২০১৯ সালের মাঝামাঝি সময়ে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*