ঢাকায় এসে কষ্ট পেয়েছেন সানি লিওনির স্বামী

চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য বাংলাদেশে আসার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা ছিল বলিউড অভিনেত্রী সানি লিওনির। তিনদিন আগে নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় থেকে বক্তব্যও দেওয়া হয়। তবে এত বাধা বিপত্তি এবং ভিসা আবেদন বাতিলের ১ দিনের মধ্যেই ঢাকায় এসেছিলেন তিনি।

একটি বিবাহোত্তর সংবর্ধনা ঢাকায় এসেছিলেন বলিউডের এই আলোচিত অভিনেত্রী প্রায় ১৬ ঘণ্টা অবস্থান শেষে রবিবার সকাল ৯টা ২০ মিনিটের ফ্লাইটে ভারতে ফিরে গেছেন। সানি লিওনের বাংলাদেশ সফরের বিষয়টি নিয়ে দেশব্যাপী আলোচনা শুরু হয়।

শাপলা মিডিয়ার ‘সোলজার’ চলচ্চিত্রের জন্য তার ঢাকায় আসার কথা ছিলো। এর আগে সানি লিওনিসহ ‘সোলজার’ চলচ্চিত্রের ১১ জন অভিনয়শিল্পী, কলাকুশলীকে ভারত থেকে বাংলাদেশে আসার ওয়ার্ক পারমিট দেয় সরকার। পরে শুধু সানি লিওনির ওয়ার্ক পারমিট বাতিল করা হয়।

বৃহস্পতিবার (১০ মার্চ) তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করে। কারণ হিসেবে বলা হয়, সানি লিওন তার পরিচয় (নাম) গোপন করে ভিন্ন নামে, নিজেকে মার্কিন নাগরিক দেখিয়ে অনুমতি নেন। তথ্য মন্ত্রণালয় বিষয়টি জানার পর তার (সানি লিওন) ওয়ার্ক পারমিট বাতিল করেন। এমন পরিস্থিতিতে সানির ঝটিকা ঢাকা সফর আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে চলে আসে।

টুরিস্ট ভিসায় এসেছিলেন সানি ও তার সঙ্গীরা। তবে বাংলাদেশে সানি লিওনির নাম গোপনের বিষয়টি নিয়ে যে বিতর্ক হয়েছে, তা নিয়ে বেশ কষ্ট পেয়েছেন স্বামী ড্যানিয়েল ওয়েবার। তিনি জানিয়েছেন সানি লিওনি নাম গোপন করেননি। নায়িকার প্রকৃত নাম ‘করণজিৎ কৌর’ তা সবারই জানা। আর তাই নাম গোপনের প্রশ্নই ওঠে না। ড্যানিয়েল দেশীয় গণমাধ্যমকে বলেছিলেন, ‘সানি বিষয়ে মিথ্যা তথ্য ছড়ানো হয়েছে। সানি কোনো প্রতারণার আশ্রয় নেয়নি। সানি আর কখনও বাংলাদেশে কাজ করবে না। ’

এর আগে শনিবার (১২ মার্চ) বিকেলে নিজের ফেসবুক পেজে একটি ছবি পোস্ট করেন সানি লিওন। তাতে দেখা যায়, তিনি ঢাকার বিমানবন্দরে। তার পেছনে লেখা রয়েছে ওয়েলকাম টু বাংলাদেশ। ছবির ক্যাপশনে সানি লিওন লেখেন, সুন্দর এ দেশটিতে এসে আমি খুব খুশি।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*