প্রেমের টানে কাঁটাতারের বেড়া পেরিয়ে পঞ্চগড়ে ভারতীয় কিশোরী

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় প্রেমের টানে ভারত থেকে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করায় খুশনুমা (১৭) নামে এক ভারতীয় কিশোরীকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের সর্দারপাড়া এলাকার হাসিনুর রহমান নামে এক ব্যক্তির বাড়ি থেকে পুলিশ ওই কিশোরীকে আটক করে।

খুশনুমা ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের উত্তর দিনাজপুরের গোয়ালপুকুরথানার হাড়িয়ানা গ্রামের ইশরাইল হোসেনের মেয়ে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, আট বছর আগে পরিবারে অভাবের কারণে বাংলাদেশ থেকে পালিয়ে ভারতের কেরালা রাজ্যে যান বাংলাদেশের ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার মোলেহাট ইউনিয়নের রতনদিঘী গ্রামের ইসরাইল হোসেনের ছেলে আব্দুল লতিফ ওরফে রকিব (২১)। পরে রাকিব ভারতের কেরালার হাজি আলী নামে একটি হোটেলে কাজ পান।

সেই হোটেলে কাজ করতেন খুশনুমার বড় ভাই। সেখানে তাদের পরিচয় হওয়ার সুবাদে পুজোর ছুটিসহ বিভিন্ন সময় রকির তাদের বাড়িতে যাতায়াত করতেন। একপর্যায়ে খুশনুমা ও রাকিবের মধ্যে পরিচয় হয় এবং প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

এদিকে রকিব কয়েকদিন আগে দেশে ফিরে আসার পর প্রেমের টানে হঠাৎ খুশনুমা গতকাল বুধবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) রাতে ভারতের মুড়িখাওয়া থেকে বাংলাদেশের তেঁতুলিয়া সর্দারপাড়া সীমান্ত হয়ে ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করে। পরে কাঁটাতারের বেড়া পার হয়ে তেঁতুলিয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের সর্দারপাড়া এলাকার হাসিনুর রহমানের বাড়িতে আশ্রয় নেয়।

বৃহস্পতিবার সকালে সীমান্ত গ্রাম সর্দারপাড়া এলাকায় হঠাৎ ওই কিশোরীকে ঘুরাঘুরি করতে দেখে স্থানীয়দের সন্দেহ হয়। তেঁতুলিয়া মডেল থানায় খবর দিলে পুলিশ তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। প্রেমিকাকে আটকের খবর পেয়ে থানায় ছুটে যান রাকিব। পরে তারা দুজনে বিয়ে করার দাবি করলেও প্রমাণ দেখাতে পারেননি। মেয়েটি তার প্রেমিকের বাড়িতে যাওয়ার জন্য পুলিশের কাছে অনুরোধ ও কান্নাকাটি করে।

তেঁতুলিয়া মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মাকর্তা (ওসি) আবু সায়েম মিয়া বলেন, খুশনুমা নামে ওই ভারতীয় কিশোরী বাংলাদেশের রাকিব নামে এক যুবকের সঙ্গে প্রেমের সর্ম্পক থাকায় ভারত থেকে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করে। খবর পেয়ে তাকে থানায় আনা হয়।

প্রেমিকা নিতে আসেন রাকিব। কিন্তু মেয়েটি অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় ও বৈধভাবে বাংলাদেশে না আসায় ওই যুবকের হাতে তাকে তুলে দেয়া যাচ্ছে না। তাই আমরা বিষয়টি বিজিবিকে জানিয়েছি। ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) সঙ্গে যোগাযোগ করে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে মেয়েটিকে ভারতে ফেরত পাঠানোর কথা রয়েছে।

এ বিষয়ে পঞ্চগড় ১৮ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল গোলাম ফজলে রাব্বী বলেন, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিএসএফের সঙ্গে বিজিবির পতাকা বৈঠক হয়েছে। আটক মেয়েটির বায়োডাটা বিএসএফ সংগ্রহ করেছে। মেয়েটির দেওয়া তথ্য যদি সঠিক হয়, তাহলে বিএসএফ তাকে ফেরত নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*