বাদুড় থেকে আসছে আরেক করোনা

করোনাভাইরাসের কারণে বিপর্যস্ত পুরো বিশ্ব। এরই মধ্যে এই ভাইরাসটি কয়েকবার রূপ পরির্বতন করেছে। ভাইরাসটির নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনে নাকাল সকল দেশের মানুষ। এরই মধ্যে বিশ্ববাসীকে দুঃসংবাদ দিলেন বিজ্ঞানীরা।

তাদের দাবি করোনার আরও একটি নতুন ধরন শনাক্ত হয়েছে সাউথ আফ্রিকায়; যেটি মৃত্যু এবং সংক্রমণের দিক থেকে সার্স সিওভি-টু বা কোভিড-১৯ নামক করোনাভাইরাসের ভয়াবহতাকে ছাড়িয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এই খবর প্রকাশ করেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জি নিউজ ও এনডিটিভি।

নিওকোভ নামে নতুন এ ধরনটির সঙ্গে মিডল-ইস্ট রেসপিরেটরি সিন্ড্রোমের (মার্স) বেশ মিল রয়েছে।চীনের উহানে বিজ্ঞানীদের এক গবেষণাপত্রের বরাতে শুক্রবার এ খবর ছেপেছে ভারতের একাধিক সংবাদমাধ্যম। করোনাভাইরাসের আগের ধরনগুলোর চেয়ে বেশি সংক্রামক ও প্রাণঘাতী হতে পারে নতুন ধরন নিওকোভ। এতে আক্রান্ত প্রতি তিনজনে একজনের মৃত্যু হতে পারে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সাউথ আফ্রিকার বাদুড়ের মধ্যে এটির উপস্থিতি পাওয়া যায়। পরে অন্যান্য প্রাণীর মধ্যে তা ছড়িয়ে পড়ে। মিউটেশনের মাধ্যমে এটি আরেকবার পরিবর্তন হয়ে মানুষের মধ্যে ঢুকে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। তবে এটি নিশ্চিত হতে আরও গবেষণার প্রয়োজন।

গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসের আগের ধরনগুলোর চেয়ে বেশি সংক্রামক ও প্রাণঘাতী হতে পারে নতুন ধরন নিওকোভ। এতে আক্রান্ত প্রতি তিনজনে একজনের মৃত্যু হতে পারে। প্রচলিত কোনো টিকায় এর প্রতিরোধ সম্ভব হবে না।

উহান ইউনিভার্সিটি এবং চাইনিজ একাডেমি অফ সায়েন্সেস ইনস্টিটিউট অফ বায়োফিজিকস এ গবেষণাপত্রটি ছেপেছে। সেখানে বলা হয়েছে, মানব কোষে নিওকোভ ঢোকার জন্য শুধু একবার মিউটেশন প্রয়োজন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*