বিমানবন্দরে কাঁদতে থাকা সেই প্রবাসীর লাগেজ উদ্ধার

নড়াইলের ছেলে রাকিব দীর্ঘদিন পর সৌদি আরব থেকে দেশে এসেছে। কিন্তু দেশের মাটিতে পা রেখেই ঘটে বিপত্তি। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে লাগেজ হারিয়ে ফেলেন তিনি। একপর্যায়ে টাকা ও মূল্যবান জিনিসপত্র হারিয়ে সেখানেই কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

তার কান্নার সেই ভিডিও ভাইরাল হয় সামাজিক মাধ্যমে। বিষয়টি দৃষ্টিগোচর হয় প্রশাসনেরও। রাকিবের খোয়া যাওয়া লাগেজটি ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই উদ্ধার করে দিয়েছে বিমানবন্দরে দায়িত্বরত আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) সদস্যরা। তবে লাগেজটি চুরি যায়নি, অন্য একজন নিজের লাগেজ রেখে ভুল করে রাকিবের লাগেজটি নিয়ে গিয়েছিলেন বলে জানা গেছে।

এপিবিএন জানায়, প্রায় ১৩ বছর সৌদি আরবে ছিলেন নড়াইলের কালিয়া থানা এলাকার বাসিন্দা রাকিব। ভিসা না থাকায় বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) বেলা ৩টায় সৌদি আরব থেকে দেশে ফেরেন। তবে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নেমেই হারিয়ে ফেলেন লাগেজ ও মূল্যবান সামগ্রী। লাগেজে সাড়ে ৭ লাখ টাকা সমমূল্যের চেক ছিল বলে দাবি করেন রাকিব। লাগেজটি হারানোর পর অনেক খোঁজাখুঁজি করেও না পেয়ে এপিবিএন অফিসে যোগাযোগ করেন রাকিব।

এর মধ্যেই রাকিবের কান্নাজড়িত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। সেই ভিডিওতে রাকিব বলেন, বিমানবন্দরের বাইরে থেকে চুরি হলে ভিন্ন কথা ছিল। কিন্তু লাগেজটি বিমানবন্দরের ভেতর থেকে হারিয়ে যায়। চার বছর পর দেশে আসছি। লাগেজের ভেতর ব্যাংকের সাতটি চেক ছিল, তাতে বাংলাদেশি টাকায় সাড়ে সাত লাখ টাকা হয়।

তাৎক্ষণিকভাবে রাকিবের লগেজ উদ্ধারে তৎপরতা শুরু করে এপিবিএন। ঘটনার সময় ও ঘটনার পরবর্তী সময়ের সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) বিকেলে লাগেজটি উদ্ধার করা হয়।এপিবিএনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জিয়াউল হক জিয়া বলেন, সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে সৌদি প্রবাসী রাকিবের লাগেজটি উদ্ধার করা হয়েছে। আসলে তার লাগেজটি চুরি হয়নি।

ভুলে অন্য একজন রাকিবের লাগেজটি নিয়ে গিয়েছিলেন এবং নিজের লাগেজটি রেখে গিয়েছিলেন। বিমানবন্দর থেকে কারো লাগেজ চুরি হওয়ার সুযোগ নেই। সেখানে এপিবিএন টিমসহ অন্যান্য নিরাপত্তা কর্মীরা সার্বক্ষণিক কাজ করেন বলেও জানান তিনি।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*