সুইসাইড নোটে নারী চিকিৎসক লিখলেন; ডাক্তারদের হয়রানি করা বন্ধ করুন

ভারতের রাজস্থানের দৌসা জেলায় ডা. অর্চনা শর্মা নামে এক নারী চিকিৎসক সুইসাইড নোট লিখে আত্মহত্যা করেছেন।হাসপাতালে এক গর্ভবতী নারীর মৃত্যুর ঘটনায় ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০২ ধারায় (হত্যার অভিযোগে) তার বিরুদ্ধে একটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছিল। এ ঘটনার পর মঙ্গলবার তিনি আত্মহত্যা করেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, সুইসাইড নোটে অর্চনা শর্মা তার মৃত্যুর পরে তার স্বামী ও সন্তানদের হয়রানি না করার জন্য আবেদন জানিয়েছেন। সুইসাইড নোটে তিনি ‘নিরাপরাধ ডাক্তারদের হয়রানি’ না করার জন্যও অনুরোধ করেন। এতে তিনি লেখেন, ‘আমার মৃত্যুতে আমার নির্দোষ প্রমাণ হতে পারে। নিরপরাধ ডাক্তারদের হয়রানি করবেন না। দয়া করে।’

অর্চনা শর্মার পুরো সুইসাইড নোটটি তুলে ধরা হলো-

‘আমি আমার স্বামী এবং সন্তানদের অনেক ভালোবাসি। আমার মৃত্যুর পর দয়া করে তাদের হয়রানি করবেন না। আমি কোনো ভুল করিনি, কাউকে হত্যা করিনি। পিপিএইচ (সন্তান জন্মদানে প্রচণ্ড রক্তক্ষরণ) একটি পরিচিত জটিলতা। এর জন্য ডাক্তারদের এত হয়রানি করা বন্ধ করুন। আমার মৃত্যু আমাকে নির্দোষ প্রমাণ করতে পারে। নিরপরাধ ডাক্তারদের হয়রানি করবেন না। দয়া করে। ভালোবাসি আপনাদের। আমার বাচ্চাদের মায়ের অনুপস্থিতি অনুভব করতে দেবেন না।’

প্রসূতি নারীর মৃত্যুর পর তার পরিবারের সদস্যরা বেসরকারি হাসপাতালটির গাফিলতির অভিযোগ তোলেন এবং ডাক্তার অর্চনা শর্মার বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ দায়ের করেন। বুধবার দৌসার লালসোট থানার অফিসার ইনচার্জ অঙ্কিত চৌধুরীকে ডা. অর্চনা শর্মা আত্মহত্যার ঘটনায় বরখাস্ত করা হয়েছে।

এদিকে, বুধবার রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটের বাসভবনে একটি উচ্চপর্যায়ের বৈঠক হয়েছে। অশোক গেহলট বলেন, দৌসায় চিকিৎসকের আত্মহত্যার বিষয়ে পুলিশ অবাধ ও সুষ্ঠু তদন্ত করছে। তিনি কর্মকর্তাদের এই ধরনের ঘটনা বন্ধ করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*