হ’জের কাপড়কেই ‘কাফন’ হিসেবে রেখে যান রিয়াজের শ্বশুর

ফেসবুকে এখন ঢুঁ মা’রলেই মিলছে চিত্রনায়ক রিয়াজের শ্বশুর আবু মহসিন খানের কিছু স্মৃ’তি। ভাসছে দরজার সেই লেখা আর কাফনের কাপড়ের ছবি। আত্মহ’ত্যার আগে এ মানুষটি নিজের জীবনের সব ক’ষ্টের কথা বলে যান ফেসবুকে লাইভে। মৃ’ত্যুর জন্য কাউকে দায়ীও করেননি। সোজা মা’থায় অ’স্ত্র ঠেকিয়ে লাইসেন্স করা গু’লিতে প্রা’ণ দেন। তবে মৃ’ত্যুর আগেই হ’জে ব্যবহার করা সেই কাপড়কে কাফন হিসেবে রেখে যান আবু মহসিন খান।

বুধবার রাত পৌনে ১০টার দিকে রাজধানীর ধানমণ্ডিতে নিজ বাসায় ফেসবুক লাইভে এসে আত্মহ’ত্যা করেন মহসিন। আত্মহ’ত্যার আগে একটি সুই’সাইড নোট রেখে গেছেন তিনি। সেখানে লিখেছেন ‘আমা’র মৃ’ত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়।’ এছাড়া আত্মহ’ত্যার আগে তিনি কাফনের কাপড় রেখে গেছেন। কম্পিউটারে টাইপ করা কাপড়ের প্যাকে’টের ওপর নোটও রেখে যান তিনি।

পু’লিশ জানায়, বুধবার রাতে নিজের ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে আসেন নায়ক রিয়াজের শ্বশুর আবু মহসিন খান। লাইভে নিজের শারীরিক অবস্থা, পরিবার, স্বজন, ব্যবসা’সহ নানা বিষয়ে কথা বলেন। লাইভের ১৫ মিনিটের মা’থায় প্রথমে একটি ফাঁকা গু’লি। পরে নিজের মা’থার ডান পাশে গু’লি করেন মহসিন খান। এরপর নিস্তেজ হয়ে পড়েন তিনি।

ফেসবুকে লাইভের ওই ভিডিওতে দেখা যায়, কালেমা পড়তে পড়তে নিজের মা’থায় পি’স্তল ঠেকিয়ে গু’লি করেন মহসিন। মোট ১ ঘণ্টা ১৩ মিনিট ৬ সেকেন্ডের লাইভে নিজের মা’থায় গু’লি করেন ১৬ মিনিট ১৩ সেকেন্ডের সময়। ভিডিওতে দেখা যায় গু’লির পরে ১৬ মিনিট ২১ সেকেন্ডের সময় নিজের হাত থেকে পি’স্তলটি পড়ে যায়। এরপর ধীরে ধীরে নিস্তেজ হয়ে পড়েন।

লাইভে তিনি বার্ধক্যের নিঃসঙ্গতা নিয়ে কথা বলেন। তিনি বলেন, আমি ক্যানসার আ’ক্রান্ত। আমা’র ব্যবসা এখন বন্ধ। আমা’র এক ছে’লে থাকে অস্ট্রেলিয়ায়। আমি বাসায় একাই থাকি। আমা’র ভ’য় করে যে, আমি বাসায় ম’রে পড়ে থাকলে, লা’শ পচে গেলেও কেউ হয়তো খবর পাবে না।

এ বিষয়ে পু’লিশের রমনা বিভাগের উপকমিশনার মো. সাজ্জাদুর রহমান বলেন, ধানমণ্ডি এলাকার ৭ নম্বর সড়কের ২৫ নম্বর বাড়ির ওই ফ্ল্যাটে একাই থাকতেন আবু মহসিন খান। তার মৃ’ত্যুর জন্য কেউ দায়ী নন বলে সুই’সাইড নোটে লিখে গেছেন তিনি।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*